Vetnai – The Blackbuck Nation

Vetnai – The Blackbuck Nation

Reading Time: 6 minutes Vetnai – The Blackbuck Nation কোলকাতা থেকে উইকএন্ড প্ল্যান করে আপনারা ঘুরে আসতে পারেন উড়িষ্যার ভেতনইতে (Vetnai)। ছোট করে গল্পের শুরু জানতে হলে প্রায় ১০০ বছর ইতিহাসে ফেরত যেতে হবে। সেবার বর্তমানে ওডিশার গঞ্জাম জেলা ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে প্রখর খরা হল। চাষ-বাস প্রায় যায় যায় অবস্থায়, এমন সময় গ্রামের লোকেরা একপাল কৃষ্ণসার হরিণ দেখলেন যা আগে কখনও গ্রামে দেখা যায়নি। অত্যাশ্চর্য ভাবে তীব্র খরা কাটিয়ে পরদিন বৃষ্টি নামল। তারপর থেকেই গ্রামের লোকেরা কৃষ্ণসার হরিণদের সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে প্রায় দেবদূত এর ন্যায় মর্যাদা দেওয়া শুরু করলেন। কৃষ্ণসারদের প্রতি এই মনোভাব আর ভালবাসার গ্রামটিই ভেতনই। যাওয়ার রুট: শুক্রবার সন্ধ্যায় অফিস করে, কলকাতা থেকে দক্ষিন ভারত গামী যে কোনও রাত্রের ট্রেন এ চেপে বসুন। চলে যান চিলকা হ্রদ এর পাশ দিয়ে, ওডিশার প্রায় শেষ প্রান্তে অবস্থিত ব্রহ্মপুর (Berhampur) অবধি। সকালে ট্রেন থেকে নেমে একটা লোকাল অটো নিয়ে পৌঁছে যান বাস স্ট্যান্ড । সেখান থেকে বাস ধরে আপনার ফাইনাল গন্তব্য আস্কা। প্রত্যেক ১০-১৫ মিনিট অন্তরে আস্কা’র বাস পাবেন। ঘন্টা খানেক এর মধ্যে সবুজ পাহাড়ে ঘেরা দারুন রাস্তা অতিক্রম করে বাস পৌঁছবে আস্কা। থাকার জায়গা: বাস স্ট্যান্ডের পাশেই কয়েকটা থাকা ও খাবারের হোটেল রয়েছে – নিশ্চিন্তে স্পট বুকিং পেয়ে যাবেন। বলে রাখা ভাল যে হোটেল গুলি সাধারণত মধ্যমানের – কিন্তু আপনি যেহেতু প্রকৃতিপ্রেমী আর মোটে ১ রাতের ব্যাপার তাই আরামে থাকতে পারবেন। আপনাদের যদি এরসাথে মংলাজোড়িতে যাওয়ার পরিকল্পনা থাকে তাহলে আপনারা ওখানে থাকার জন্যে Godwit Eco Cottage বা Mangalajodi Ecotourism দেখতে পারেন। Contact of Godwit Eco Cottage : Phone no. – 8455075534, 8455075534 E-mail – godwitecocottage@gmail.com Contact of Mangalajodi Eco-tourism : E-mail -mangalajodiecotourism@gmail.com Phone: (+91) 88952-88955, 97766-96800 ঘোরার বিবরন: হোটেল এ চেক-ইন করে ফ্রেশ হয়ে ভরপেট লাঞ্চ করে নিন। তারপর একটা অটো বুক...
জঙ্গলময় রাজস্থান – রনথম্ভোর ন্যাশনাল পার্ক

জঙ্গলময় রাজস্থান – রনথম্ভোর ন্যাশনাল পার্ক

Reading Time: 5 minutesজঙ্গলময় রাজস্থান – রনথম্ভোর ন্যাশনাল পার্ক রাজস্থান বলতেই মনে পড়ে কেল্লা, বালি, পাথর আর মরুভূমির কথা। কিন্তু জঙ্গল, বন্যপ্রাণ ও পক্ষীকুলের সম্ভার নিয়ে আরেকটা সবুজ অংশও রয়েছে এই বৈচিত্রময় রাজ্যে। ‘রেগিস্তান’এর ছবির আড়ালে পূর্ব রাজস্থানে রয়েছে তিনটি অনন্য অভয়ারণ্য – সরিস্কা, রনথম্ভোর ও ভরতপুর। কলকাতা থেকে ৮-১০ দিনের রাজস্থানের ট্যুর প্যাকেজে গিয়ে সাধারণত যা দেখা হয় না অধিকাংশ পর্যটকেরই। “Maati Baandhe Painjanee../ Bhangdi Pehne Baadli../ Dedo Dedo Baavdo../ Ghod Mathod Bhavdi…” চেনা চেনা ঠেকছে গানের লাইনগুলো? এটা রাজস্থান ট্যুরিজমের বিজ্ঞাপনের সেই সরকারি থিম সং। সেই বিজ্ঞাপনে একেক জন রাজস্থানকে দেখে একেকরকম ভাবে। এতই বৈচিত্রে ভরা রাজস্থান। মনমাতানো রাজস্থানী ফোক গানটির সাথে একাত্ম হয়েই আজ দেখে নেওয়া যাক বাঘ দেখার জন্য বিখ্যাত রনথম্ভোরের জঙ্গলকে। দক্ষিণ-পূর্ব রাজস্থানে সওয়াই মাধোপুর জেলায় বিন্ধ্য ও আরাবল্লী পাহাড়ে ঘেরা ৩৯২ বর্গ কিমি এলাকা জুড়ে রনথম্ভোর জাতীয় উদ্যান। উত্তর ভারতের বৃহত্তম জাতীয় উদ্যান গুলির মধ্যে একটি এই রনথম্ভোর। জয়পুর থেকে ১৩২কিমি ও কোটা থেকে ১১০কিমি দূরত্বে সওয়াই মাধোপুর শহর। সওয়াই মাধোপুর স্টেশন থেকে ১৪ কিমি দূরে পার্কের প্রবেশ দ্বার। অতীতে জয়পুরের মহারাজাদে র প্রিয় শিকার ভূমি ছিল রনথম্ভোর। ১৯৮০তে জাতীয় উদ্যানের স্বীকৃতি পায়। পাহাড় ঘেরা উঁচু নিচু ঢেউ খেলানো রুক্ষ জমিতে শুষ্ক পর্ণমোচী অরণ্য। বন দপ্তরের ক্যান্টারে চড়ে জঙ্গল সাফারি। জঙ্গলে দেখা মেলে সম্বর, নীলগাই, চিতল হরিণ, লেঙুর, বুনো শুয়োর ও অজস্র ময়ূর। এছাড়াও এজঙ্গলে আছে লেপার্ড, শ্লথ ভল্লুক, হায়েনা আর বিভিন্ন প্রজাতির পাখি ও সরীসৃপ। আর বনের রাজা বাঘ এ জঙ্গলের মূখ্য আকর্ষণ। বর্তমানে ৬০-৬৫ টি বাঘ আছে রনথম্ভোরে। জঙ্গলের ভিতরে রয়েছে তিনটি বিশাল লেক, যার মধ্যে পদম তালাও সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য। তালাওয়ের কিনারে লাল বেলেপাথরে তৈরি যোগী মহল। অতীতের রাজমহল ও হান্টিং লজটি আজ একটি হেরিটেজ হোটেল। লেকের কাছেই আছে এক সুপ্রাচীন...
জঙ্গলময় রাজস্থান – সারিস্কা টাইগার রিসার্ভ ও ন্যাশনাল পার্ক

জঙ্গলময় রাজস্থান – সারিস্কা টাইগার রিসার্ভ ও ন্যাশনাল পার্ক

Reading Time: 5 minutesজঙ্গলময় রাজস্থান – সারিস্কা টাইগার রিসার্ভ ও ন্যাশনাল পার্ক   রাজস্থান বলতেই মনে পড়ে কেল্লা, বালি, পাথর আর মরুভূমির কথা। কিন্তু জঙ্গল, বন্যপ্রাণ ও পক্ষীকুলের সম্ভার নিয়ে আরেকটা সবুজ অংশও রয়েছে এই বৈচিত্রময় রাজ্যে। ‘রেগিস্তান’এর ছবির আড়ালে পূর্ব রাজস্থানে রয়েছে তিনটি অনন্য অভয়ারণ্য – সরিস্কা, রনথম্ভোর ও ভরতপুর। কলকাতা থেকে ৮-১০ দিনের রাজস্থানের ট্যুর প্যাকেজে গিয়ে সাধারণত যা দেখা হয় না অধিকাংশ পর্যটকেরই। “Maati Baandhe Painjanee../ Bhangdi Pehne Baadli../ Dedo Dedo Baavdo../ Ghod Mathod Bhavdi…” চেনা চেনা ঠেকছে গানের লাইনগুলো? এটা রাজস্থান ট্যুরিজমের বিজ্ঞাপনের সেই সরকারি থিম সং। সেই বিজ্ঞাপনে একেক জন রাজস্থানকে দেখে একেকরকম ভাবে। এতই বৈচিত্রে ভরা রাজস্থান। মনমাতানো রাজস্থানী ফোক গানটির সাথে একাত্ম হয়েই আজ দেখে নেওয়া যাক আলোয়ার জেলায় আরাবল্লী পাহাড়ে ঘেরা ছবির মত সুন্দর ‘সারিস্কা ন্যাশনাল পার্ক’ কে। ২৭৩.৮ বর্গ কিমি কোর এলাকা নিয়ে অবস্থিত এই ‘সারিস্কা ন্যাশনাল পার্ক’। বাফার এলাকা ৮০০ বর্গ কিমি। আলোয়ার শহর থেকে ৩৭ কিমি ও দিল্লি থেকে ২০০ কিমি দূরে পার্কের গেটের অবস্থান। বন্যপ্রাণী দেখার এক আদর্শ স্থান এই সারিস্কার জঙ্গল। পাহাড় ঘেরা উঁচু নিচু, ঢেউ খেলানো বনভুমিতে হুড খোলা জিপসিতে চড়ে জঙ্গল সাফারি অত্যন্ত চিত্তাকর্ষক। এই অরণ্যে দেখা যায় অজস্র সম্বর, নীলগাই, চিতল, চতুরশৃঙ্গী, চিঙ্কারা সহ বিভিন্ন প্রজাতির অ্যান্টিলোপ (Antelope) ও লেঙ্গুর। পথের পাশে কখনও দেখা মেলে বুনো শুয়োর বা ওয়াইল্ড বোর, ওয়াইল্ড ক্যাট ও শিয়ালের। এছাড়া জঙ্গলে যত্রতত্র ঘুরে বেড়ায় ময়ূর। কখনও বা তারা গাড়ির সামনেই রাস্তা ধরে নাচতে নাচতে এগিয়ে চলে। এ তল্লাটে অবশ্য সর্বত্রই দেখা মেলে আমাদের জাতীয় পাখিটির। হিংস্র জন্তু বলতে লেপার্ড আর অবশ্যই বাঘ আছে এ জঙ্গলে। তবে বাঘ দেখার জন্য তেমন সুখ্যাতি নেই সারিস্কার। দেশের অনেক অভয়ারণ্যে ঘুরেছি। কিন্তু সারিস্কায় দুবারের ভ্রমণ অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি যে জঙ্গল সাফারিতে...
Keoladeo National Park (Bharatpur)

Keoladeo National Park (Bharatpur)

Reading Time: 3 minutesKeoladeo National Park (Bharatpur) The Keoladeo National Park or Bharatpur Bird sanctuary is one of the best bird watching destinations in India. The sanctuary is named after a Keoladeo (Siva) temple within its boundary. Morning and evening is the best time for bird watching. This sanctuary is home for 366 species of birds, 379 species of floras, 50 species of fishes, 13 species of snakes, 5 species of lizards, 7 species amphibians and 7 species turtle. Best Time to Visit: October to March Famous for: Bird Watching. Activities: Nature walks, bird watching,  Vegetation: Grass land Location: 27.07N-77.29E Nearby Attractions: Lohagarh Fort, Kasrra Durbar palace, Diyalo Bangala Palace, DAO building, Ganesh Temple, Devghat, Bhageswari temple, Kalika temple, Durga Temple. Entry Fees: For Student : Rs 10/- (with Id Card) For Indian: Rs 50/- For Foreigner: Rs 200/- Video Camera : Rs 200/- Bicycle : 30/day Cycle rickshaw: 50-75/hour Guide: 150/hour Distance Chart: Agra: 53km Delhi: 168km Jaipur: 171km How to get there: By Air: Agra is the nearest airport connected Delhi trough a number of flights. By rail: Nearest railhead Bharatpur. A number of trains are available from Delhi,Mumbai. By Road: A network of express bus service link Bharatpur with several cities of Rajasthan. Driving route: To reach Bharatpur from Delhi, take NH 2 to Mathura via Faridabad, Palwal, Hodal and Kosi Kalan. From Mathura, take the state road to Bharatpur. How to Plan a trip: Bharatpur ideal for 3days trip. But it may vary depending on your criteria. For this trip first reach Delhi. From there take a bus or hire a car to reach Bharatpur.The...