Denmark Tavern – Day trip from Kolkata

Denmark Tavern – Day trip from Kolkata

DENMARK TAVERN, WHERE THE HISTORY IS RESTORED – ডেনমার্ক ট্যাভার্ন – ডঃ সন্দীপ পালের কলমে ওপরের ছবিটি দেখছেন? এটি ১৭৯০ সালে পিটার আনকার-এর আঁকা – নদীটি আমাদের গঙ্গা, আর যে ঘাটটি দেখতে পাচ্ছেন সেটা হল হুগলীর শ্রীরামপুর ঘাট। ডানদিকে যে দোতলা বাড়িটি দেখতে পাচ্ছেন সেখানেই গিয়েছিলাম সেদিন কলেজ থেকে ফেরার পথে। কেমন যেন গুলিয়ে যাচ্ছে তাইতো? গোলানোটাই স্বাভাবিক! বলতে পারেন এক ধাক্কায় ২৩২ বছর পিছিয়ে গিয়ে সাক্ষাৎ ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলাম বেশ কিছুক্ষন। সম্বিৎ ফিরল সন্ধ্যে নামার আগে গঙ্গার ঠান্ডা বাতাসে। কয়েকবছর আগেও ওই ছবির বাড়িটির ভগ্নাবশেষ দেখেছি। সংস্কার করে আগের অবস্থায় পৌঁছে দেওয়ার সুন্দর প্রয়াস। এটিই হল শ্রীরামপুরে গঙ্গার ধারের “ডেনমার্ক ট্যাভার্ন”। একবেলা ঘুরে আসলে খারাপ লাগবেনা হলফ করে বলতে পারি। রেস্টুরেন্ট, ক্যাফে তো আছেই – আর যেটা আছে সেটা হল গঙ্গার ধারে ইতিহাসের কোলে বসে নির্ভেজাল বাঙালী আড্ডা। পথনির্দেশ: হাওড়া-ব্যান্ডেল লাইনে শ্রীরামপুর স্টেশনে নেমে টোটো কে বললেই হবে – “ডেনমার্ক ট্যাভার্ন” – ১০ টাকায় ইতিহাস দর্শন। ঘাট পেরিয়ে যদি আসেন ব্যারাকপুরের ধোবিঘাট পেরিয়ে শ্রীরামপুর ঘাটে নেমে বাঁদিকে যে গলিটায় সাইকেল রাখা থাকে ওটা ধরে সোজা মাত্র ৫ মিনিটের হাঁটাপথ। Photo Courtesy and Content writer : Dr. Sandip Pal Assistant Professor, Department of Zoology, Barrackpore Rastraguru Surendranath,College...
SARNATH : The land of buddhism

SARNATH : The land of buddhism

SARNATH the land of buddhism- ঋষিপত্তন বা সারঙ্গনাথের রাজপাট – শিবাংশু দের কলমে Sarnath : The land of buddhism “…. বারাণসির উত্তর-পূর্বদিকে বরণা ( বরুণা) নদী পেরিয়ে ১০ লি মতো গেলে ‘লু ঈ’ বা মৃগদাব সঙ্ঘারামের দেখা পাওয়া যায়। এর সীমানা আট ভাগে বিভক্ত, একটি ঘেরা দেওয়াল দিয়ে সব গুলি সংযুক্ত রয়েছে। কয়েকতল উঁচু বুরুজগুলি সংলগ্ন ঝুলবারান্দা ও সেগুলির কারুকাজ খুব নিপুণ হাতের কাজ। এই সঙ্ঘারামটিতে ১৫০০ মতো ভিক্ষু রয়েছেন। তাঁরা হীনযান মতের সম্মতীয় শাখার উপাসক। বিরাট সীমানার মধ্যে প্রায় দুশো ফুট উঁচু একটি বিহার দেখলাম। তার শীর্ষদেশে একটি সোনায় মোড়া আমের প্রতিকৃতি রয়েছে। দালানগুলির ভিত্তি পাথরের। সিঁড়িও পাথরের, কিন্তু বুরুজ ও কুলুঙ্গিগুলো ইঁটের তৈরি। কুলুঙ্গিগুলো চারদিকে একশোটি সারিতে সাজানো ও তার প্রত্যেকটিতে একটি করে সোনার বুদ্ধমূর্তি রয়েছে। বিহারের মধ্যে দেশি তামা দিয়ে তৈরি একটি বুদ্ধমূর্তি। ধর্মব্যাখ্যানের রত এই মূর্তিটির আকার স্বাভাবিক মানুষের সমান।“ মূলগন্ধকুটিবিহারের এই বর্ণনা করেছিলেন হিউ এন সাং আনুমানিক ৬৪০ সালে। তাঁর বিবরন পড়ে মনে হয় চতুর্থ ও পঞ্চম শতকে গুপ্তযুগে নির্মিত  এই বিহারটি সেই সময় পূর্ণ গৌরবে বিরাজ করতো। বুদ্ধ নিজে তাঁর অনুগামীদের যে চারটি স্থানকে ‘অভিজাহিতাত্থানানি’ অর্থাৎ অপরিবর্তনীয়  তীর্থভূমি বলে নির্দেশ দিয়েছিলেন ঋষিপত্তনের  মৃগদাব, যেখানে মূলগন্ধকুটিবিহার নির্মিত হয়েছিলো, তার অন্যতম। বাকি তিনটি লুম্বিনী, উরুবেলা (বোধগয়া) এবং কুশিনারা।  বৌদ্ধদর্শনের পবিত্রতম কেন্দ্র হিসেবে ঋষিপত্তনের বিহারটি সমগ্রবিশ্বে স্বীকৃত ছিলো। একটি রটনা আছে যে গৌড়ের রাজা শশাঙ্ক নাকি ঋষিপত্তনের বিহারটি বিধ্বস্ত করেছিলেন। এই রটনাটির সূত্র কিন্তু আবার এই হিউ এন সাং। তিনি ৬৪৪ সালে ভারত ত্যাগ করেছিলেন এবং তাঁর ঋষিপত্তন আগমন তার দুচার বছর আগেই। হিউ এন সাং ‘ধর্ম-ব্যাখ্যানে রত’ যে বুদ্ধমূর্তিটির কথা উল্লেখ করেছেন সেটি বুদ্ধের উপবিষ্ট ‘ধর্মচক্রপ্রবর্তনমুদ্রা’র প্রতিচ্ছবি। তাঁর বর্ণনা অনুযায়ী সেটি ধাতুনির্মিত ছিলো। কিন্তু ঊনবিংশ শতকে মূলবিহারের খননসূত্রে লব্ধ এই মুদ্রায় বুদ্ধের প্রস্তরমূর্তিটির ( যেটি...
Simlipal National Park Tour guide

Simlipal National Park Tour guide

Simlipal National Park and Bangriposi weekend trip guide সিমলিপাল(Simlipal National Park) !! নামটা বেশ জমকালো। কিন্তু জায়গাটা কেমন? ইন্টারনেট ঘেঁটে যা তথ্য পাওয়া যায় তাই দিয়েই সেরে নেওয়া হল যাবার পরিকল্পনা। সিমলিপাল ন্যাশনাল পার্ক আয়তনে ২৭৫০ বর্গ কিলোমিটার। গড় উচ্চতা ২০০০ ফুট।গভীর জঙ্গলে পরিপূর্ণ সুউচ্চ পর্বতমালা উড়িষ্যার উত্তর পূর্ব দিকে কোথাও বিস্তীর্ণ বা কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে রয়েছে। এদের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হল সিমলিপাল।উড়িষ্যা-পশ্চিমবঙ্গের সীমানা থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার। সড়কপথে কলকাতা থেকে দূরত্ব প্রায় ২৩০ কিলোমিটার। তাই কলকাতা ও শহরতলির মানুষজনের ক্ষেত্রে কাছাকাছির মধ্যে মনোরম অথচ অন্যরকম জায়গা এই সিমলিপাল। সিমলিপাল ন্যাশনাল পার্কের প্রবেশপথ প্রধানত দুটি। ১. পিথাবাটা ২. যোশীপুর। কাছাকাছি হোটেল বলতে বারিপাদায়( পিথাবাটা গেট থেকে ২০ কিমি) যথেষ্ট হোটেল আছে। বেশীরভাগ পর্যটক তাই বারিপাদা থেকেই সিমলিপাল যান। পিথাবাটা গেট দিয়ে ঢুকে আবার পিথাবাটা দিয়েই বেরিয়ে আসেন। কিন্তু আমরা হোটেল নিলাম বাংরিপোসি তে,সিমলিপাল রিসর্ট(One of the good resort near Simlipal national park)। পাহাড়ে ঘেরা উন্মুক্ত প্রান্তরের মাঝে ছোট্ট রিসর্ট,কলকাতা মুম্বাই জাতীয় সড়কের পাশেই। এখান থেকে পিথাবাটা গেট ৪৬ কিলোমিটার, এবং যোশীপুর গেট ৭০ কিলোমিটার। আমরা পিথাবাটা গেট দিয়ে ঢুকে যোশীপুর গেট দিয়ে বেরিয়ে যাব। তাতে সময় যেমন বাঁচবে বেশী, তেমনি জঙ্গলের অনেকটা জায়গা এক্সপ্লোর করা যাবে সীমিত সময়ের মধ্যেই। জঙ্গলের মধ্যেও যদিও থাকার যায়গা রয়েছে। বহির্বিশ্বের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে প্রকৃতির মাঝে ক দিন কাটাতে চাইলে এখানে থাকা যেতেই পারে। আমরা সকাল সাড়ে ছটায় বাংরিপোসির রিসর্ট থেকে রওনা দিলাম। বারিপাদা ছাড়িয়ে আমরা ঢুকতে শুরু করেছি জঙ্গলের রাস্তায়। গেট অবধি সরু পিচের রাস্তা।আশপাশের ভুমিরূপ উঁচুনিচু। মাঝে মাঝে খেজুর গাছ,পথের দু পাশে চাষের জমি। সদ্য ধান কাটা হয়েছে। ধূসর আগাছাগুলো শুধু রয়ে গেছে সোনালী ধানের স্মৃতি হিসেবে। দূরে দেখা যাচ্ছে কুয়াশামাখা পাহাড়। মাঝে মাঝে আদিবাসী গ্রাম। মুঠোফোনের নেটওয়ার্ক যাওয়া আসা করতে লাগল।...
CHAPCHAR KUT – THE FESTIVAL OF JOY IN MIZORAM

CHAPCHAR KUT – THE FESTIVAL OF JOY IN MIZORAM

Chapchar Kut – The Festival of Joy in Mizoram – রেশমি পালের কলমে যখন দেখলাম ট্র্যাডিশনাল পোশাকে-মুকুটে-গয়নায় পুরোদস্তুর সাজুগুজু সত্ত্বেও মেয়েগুলো চড়া মেক-আপ করেনি আর ছবি তোলার সময় প্রাণখোলা মিষ্টি হাসিতে সোজাসুজি ক্যামেরার দিকে তাকাচ্ছে, ঘাড় বেঁকিয়ে মোহময়ী কটাক্ষ-ফটাক্ষ দিয়ে আবেদন-টাবেদন সৃষ্টি করার কোনো চেষ্টা নেই, আর এত্ত বড়ো একটা উৎসবের জমায়েত সত্ত্বেও শহরের এক কুচি আকাশও বিজ্ঞাপনের হোর্ডিংএ মুখ ঢাকেনি, তখন মনে হল যাক বাবা ঠিক জায়গাতেই এসেছি। হুজুগে সামিল হইনি, সামিল হয়েছি উৎসবে। সত্যিকারের উৎসবে। কলকাতা থেকে আইজল উড়ে আসা সার্থক। মিজোরামের বসন্তোৎসব চাপচারকুট। যদিও রঙ খেলার ব্যাপার নেই, বরং উপলক্ষটা অনেকটাই আমাদের নবান্নের মতো। ঝুমচাষের পর নতুন ফসল ঘরে তোলার আনন্দ উদ্‌যাপন। বিভিন্ন মিজো গ্রামে আলাদা আলাদা দিনে চাপচারকুট পালিত হলেও রাজধানী আইজলের মাঠে যে চাপচারকুট হয় তা সবচেয়ে জমকালো, আর পালন করা হয় প্রতি বছর মার্চের প্রথম শুক্রবার। ঘটনাচক্রে এ বছর সেদিনটা হোলি ছিল। সারা দেশে যখন বেলুন-পিচকিরি-আবিরের ‘হোলি হ্যায়’ হুল্লোড়, তখন ভারতের এক্কেবারে পুবপ্রান্তের পাহাড়ি শহরটাতেও রঙের মেলা। লালে-সাদায়-কালোয় কি অসম্ভব উজ্জ্বল রঙিন পোশাক ওদের! চোখ ফেরানো যায় না। শান্তিনিকেতনে বসন্তোৎসবে যেমন যারা নাচগান করে তারাই শুধু নয়, আমরা দর্শকরাও নিজেদের সাজিয়ে তুলি হলুদ শাড়িতে-পাঞ্জাবিতে, পলাশের মালায়, এখানেও ঠিক তেমনি ছেলেমেয়ে সকলেই সেজেছে ট্র্যাডিশনাল মিজো পোশাকে-গয়নায়। সমস্ত বড় অনুষ্ঠানের মতো চাপচারকুটও শুরু হল কেউকেটাদের ভ্যাজরং ভ্যাজরং দ্বারা পাবলিককে তুমুল বোর করার মধ্যে দিয়ে। আমার অগত্যা মাঠের গ্যালারিতে বসে বসে দেখতে লাগলাম সারা মাঠ জুড়ে বাঁশ পড়ছে। না না প্যান্ডেল হবে না। নাচ হবে – বাঁশের নাচ। ব্যাম্বু ড্যান্স বা ‘চেরাও’ উত্তর-পূর্ব ভারতসহ সারা দক্ষিণপূর্ব এশিয়াতেই বেশ জনপ্রিয়। এক-একটা দলে দশ-কুড়ি জন করে থাকে। ছেলেরা বাজনার তালে তালে বাঁশ এদিক ওদিক করে আর মেয়েরা বাঁশের এ পাশে ও পাশে পা দিয়ে দিয়ে নাচে। আইজলের চাপচারকুটে...
5 Offbeat Destinations for your Perfect Weekend Gateway

5 Offbeat Destinations for your Perfect Weekend Gateway

5 Offbeat destinations for your perfect Weekend gateway Written by Anindita and Sourav For most of us the best part of a week is weekends & we keep searching for weekend destinations to spend a few days away from the stressful daily life. But unfortunately now a days most of the common weekend gateways are so crowded that we miss the peaceful environment which we need to refresh our mind. So here we are suggesting you five offbeat destinations around kolkata with lesser crowd & more peace. 1. Vetnai (Wild life, Birds) Vetnai is a small lesser known village in Odisha’s Ganjam district. It is famous for Blackbuck. Here approximately 1600 blackbucks roam around freely. The landscapes and various types of birds will also lure you. If you have time, you can also add Monglajori bird sanctuary in your itinerary to view rare birds and some beautiful butterflies.   How to reach : You can take overnight train from Howrah to Brahmapur (Odisha). The convenient train is 12863 Howrah – Yesvantpur SuperFast Express which departs from howrah at 8.35 P.M. and arrives at Brahmapur (BAM) at 6 A.M. From Brahmapur there are regular bus services that can take you to Aska as well as Bhetnai. How to plan: Saturday : Reach Brahmapur in the morning and check-in to the Hotel. Then proceed to Vetnai by Auto. Return back to hotel in the evening. Sunday : You can stroll around the place or you may again go to Vetnai to observe Blackbuck. Or you can go to Pakidi village to see our national bird. After lunch you can go back to Brahmapur for night train. If you have...
How to Plan your holidays in 2019

How to Plan your holidays in 2019

How to Plan your holidays in 2019 2018 is end and while this year we enjoyed several long breaks thanks to the strategic occurrence of holidays just before or after weekends, let’s see what 2019 has in store for us. Bookmark this page and plan your trips ahead. According to West Bengal State Govt. Public Holidays List,  there are 10 long weekends in 2019, which means you can plan quick getaways well in advance without having to take too much leaves. Going away for a weekend allows families and individuals to rest and recover after a long week at work. Designing a trip in advance leads to save good amount of money when you get to compare, negotiate and choose amongst multiple options available. It also means saving on time. Otherwise, thoughts like that  where to go, what to do, how to save, leaves one no where . There is more to planning a trip then finally booking the airfare and hotel.  Financially planning for a trip in advance will absolutely lead to a less stressful situation. List of Holidays: January (11>12>13) February (9>10>11) There couldn’t be a better start to the year as 2019 begins with a long weekend. So welcome the year with a short vacation to a weekend getaway near your city. This is winter time ,in this time you may visit Kuldiha,Chandpur, Sundarban, Chupi Char. Here are a few options for you : Travel destination for 2Night/3days trip Chandpur,Sundarban,Kuldiha , Chupi char, Ghatshila, Offbeat Puri Chandpur – The newest beach destination near Kolkata Chandpur is the newest beach destination near Kolkata. Still untouched by tourists, Chandpur has...