Kuldiha Forest – A Weekend Destination in Orissa

Kuldiha Forest – A Weekend Destination in Orissa

Kuldiha Forest – A Weekend Destination in Orissa কুলডিহার জঙ্গলে Content by Sanghamitra Mondal   সারাটা বছরের কত সুখ-দুঃখের ঘটনা একটু একটু করে আমাদের স্মৃতির পাতায় জমা হতে থাকে আর যখন তাকে ছেড়ে আর একটা নতুন বছরে পা দিই মনটা আপনিই কেমন হু হু করে ওঠে। তাই শুরুটাই যদি একটা বেড়ানো দিয়ে হয় তবে মনটাও ফুরফুরে হয় আবার নতুন বছরটাকেও বেশি আপন মনে হতে থাকে! অবশ্য যারা কিনা বেড়ানো পাগল তারা বছরের যেকোনো সময়ই ঘুরতে যাওয়ার ঠিক একটা যুতসই কারণ খুঁজে মনকে বুঝিয়ে নেয়। যাই হোক আমরাও তাই নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে গোঁড়ার দিকেই ছোট্ট একটা ট্রিপের আয়োজন শুরু করে দিলাম। নামের মাধুর্যের কারণেই হোক বা কাছপিঠে বলেই হোক, কুলডিহা নামটা অনেকদিন থেকেই মাথায় বাসা বেঁধেছিল। যাবার দিন স্থির হল। ট্রেনের টিকিটও কেটে নিলাম। পরের পর্ব হল কোথায় থাকব আর কি দেখব! বিস্তর গুগুল সহায়তা আর মেলামেলির পর একটা নাম ও ফোন নাম্বার বের করলাম। মনোরঞ্জন দাশ! উড়িয়া এই ভদ্রলোকের দেওয়া মাথাপিছু চার হাজারি প্ল্যানটা বেশ ন্যায্য আর ঝক্কিহীন মনে হল! ব্যাস আরকি! হাওড়া থেকে সকাল 7.25 এর ফালাকনামায় চেপে বসলাম আরেক অজানাকে জানবার উদ্দেশ্যে। মাত্র ঘণ্টা তিনেকের রেলপথ। সকালের কাঁচা ঘুমটা সামান্য কেক-বিস্কুট দিয়ে ট্রেনেই পাকিয়ে নিয়ে যখন বালাসোর পৌঁছলাম গাড়ি স্টেশনে অপেক্ষা করছিল আমাদের জন্য। সময় নষ্ট না করে হোটেলের উদ্দেশ্যে রওনা দিলাম। শান্ত নিরিবিলি, সবুজ মাঠ আর দূরের পাহাড়ের হাতছানি এরই মাঝে আমাদের ছোট্ট হোটেল। ঠিক যেমনটা সিনেমায় হয়। কিন্তু দুদিনের সফরে এসে হোটেলে বসে প্রকৃতি উপভোগ করার বিলাসিতা কি আর আমাদের সাজে! তাই একটু বিশ্রাম নিয়ে দুপুরের খাবার খেয়ে বেরিয়ে পড়লাম পঞ্চলিঙ্গেশ্বর মন্দিরের উদ্দেশ্যে। দূরপাহাড়ি রাস্তার দুপাশে কখনও সবুজ জঙ্গল কখনও খোলা মাঠ এই নিয়েই চলতে থাকল আমাদের গাড়ি। এক জায়গায় মূর্তি বানানোর কারখানা দেখে...
Kotumsar Cave – Chattisgarh

Kotumsar Cave – Chattisgarh

Kotumsar Cave – An ancient cave in Chattisgarh আদিম কালের চাঁদিম হিম content written by Subhamay Pal অন্ধকার বেশ গাঢ়, একটা হ্যাজাকের আলোয় অন্ধকার দূর দুরস্ত, বরং আরো জাঁকিয়ে বসছে। পায়ের তলায় থকথকে কাদা, জলও আছে ইতিউতি। দেয়ালগুলো দিয়ে জল চুঁইয়ে পড়ছে। নভেম্বরের শেষ, বাইরে মিষ্টি ঠান্ডা হাওয়া, মনোরম জঙ্গল আর ভেতরে অদ্ভুত গুমোট, হালকা বোটকা গন্ধ। একটা সরু শ্যাওলা মাখা পাহাড়ের দেওয়ালের খাঁজ গলে, তার গা ঘেঁষে ঢুকেছি এর ভেতরে, হুড়মুড় করে প্রায় অনেকটা নেমে এসে এই কাদা মাখা জায়গায় থিতু হয়েছি। বেশ খানিক্ষন পরে চোখ ধাতস্থ হলো, এগিয়ে চললাম গুহার ভেতরে। ১৯৯৩ নাগাদ এই চুনাপাথরের গুহাটি ও আরো দুটি গুহা আবিষ্কার হয় এই সুন্দর নির্জন, ঘন জঙ্গলাবৃত কাঙ্গার ভ্যালি ন্যাশনাল পার্কের ভেতর। এই অঞ্চলটা ক্ষয়জাত পর্বত ও মালভূমির অপরূপ ভূমিরূপ সমৃদ্ধ। গুহাগুলি কোলাব নদীর শাখানদী কাঙ্গার এর কাছাকাছি বিখ্যাত কাঙ্গার লাইমস্টোন বেল্টে অবস্থিত। যে গুহার ভেতর সেঁধিয়েছি তার প্রথমে নাম ছিল গোপনসার কেভ; কিন্তু পরে কুটুমসার নামে বেশি বিখ্যাত হয় কাছাকাছি একটি গ্রাম কুটুমসারের নামে। এছাড়া কাছাকাছি একটি ছোট পাহাড়ের মাথায় আছে কৈলাশ গুফা বা কেভ। জুন থেকে অক্টোবর জলে ভরে থাকে এই গুহাগুলো, নভেম্বরেও জল থাকে অনেকসময়, কুটুমসারে ঢোকা গেলেও কৈলাশ গুফা তখনও বন্ধ। বস্তার অঞ্চল বায়োডাইভার্সিটির এক প্রকৃষ্ট উদাহরণ। ক্ষয়জাত পর্বত, অসাধারণ সুন্দর ঝর্ণা ( তিরথগর, চিত্রকূট ), মালভূমির লালে ঘন সবুজের ছোপ। তবে এই গুহাগুলো হলো এই অঞ্চলের সবথেকে আকর্ষণীয় প্রাকৃতিক দ্রষ্টব্য। গুহাটি ছত্তিসগড়ের বস্তার জেলার জগদলপুর থেকে ৪০ কিমি মতো দূরে, কাছেই তিরথগর ফলস। প্রধান গুহাটি প্রায় ২০০ মিটার লম্বা, এছাড়াও সমান্তরাল ও লম্বালম্বি বেশ কিছু গলি চলে গেছে বিভিন্নদিকে। ভাইজাগ থেকে কিরণডৌল প্যাসেঞ্জার এ পূর্বঘাট ভেদ করে উড়িষ্যার অসাধারণ খনিজ অঞ্চল পেরিয়ে বিকেলে জগদলপুর বা রায়পুর পর্যন্ত ট্রেনে এসে বাস বা গাড়িতে...
Ladakh – Itinerary For 11 Nights 12 Days

Ladakh – Itinerary For 11 Nights 12 Days

LADAKH ITINERARY Ladakh, the land of high passes, is one of the most popular summer holiday destinations in India. Riding across high altitude mountain passes, visiting monasteries are the major allure of Ladakh. Besides spell binding landscapes, Ladakh is renowned for its ancient Buddhist monasteries. If you are planning for Ladakh in upcoming summer, the following plan will help you a lot. DAY 1: Reached Delhi at night from Kolkata DAY 2: Arrived Leh from Delhi and take rest on the same day. Night stay at Leh DAY 3: Covered sightseeing Lamayuru, Magnetic Hill, Patthar Sahib via Leh-Srinagar NH1. Night stat at Leh. DAY 4: Moved towards Nubra Valley via Khardungla(This is not World’s Highest Motorable Road) and Diskit Monastery and Night halt at Hunder DAY 5: Visited Turtuk one of the last village before POK and Night stayed at Hunder. DAY 6: Returned back to Leh DAY 7: Visited Pangong Tso via Chang La, Tsoltak and back to Leh DAY 8: Reached Tso Moriri via Kyagar Tso, Night stayed at Korzok village DAY 9: Moved towards Jispa via Leh-Manali Highway and visited Tso Kar, Nakeela, Baralacha, Gata Loops, Zingzing Bar, Tsarap River, Sarchu and Night Stayed at Jispa DAY 10: Arrived Manali via Sissu village, Rohtang Pass. Night stay at Manali. DAY 11: Reached Chandigarh from Manali DAY 12: Arrived Kolkata from Chandigarh via Delhi Accommodation in this route : Leh – Hotel Tiger Hill – 094199 86550 Nubra Valley – Habib Guest House – 098205 01211 Korzok, Tso Moriri – Hotel Lake View – 098115 95469 Jispa – Padma Lodge – 094189 11164 Manali – Hotel Summer King – 098172 77000 Car Contact Details: Mansur Ali –...
Kinnaur Spiti Tour Itinerary For 11 Nights 12 Days

Kinnaur Spiti Tour Itinerary For 11 Nights 12 Days

This is an itinerary of the Kinnaur-Spiti Tour, which was our (me and my wife) first journey to the Trans Himalayan range and we were mesmerized with the beauty of the nature in Himachal Pradesh. Journey Time : June, 2016 Itinerary  DAY 1: Reached Narkanda via Chandigarh from Kolkata at night and stayed there DAY 2: Covered Hatu Temple and Peak then moved towards Sarahan, visited Padam Palace at Rampur on the way, Bhimakali Temple, walked around the apple orchard at Sarahan and Night Halt at Sarahan DAY 3: Reached Rakchham via Karchham and Sangla, visited Kamru Fort at Sangla, roamed around on the bank of the Baspa River at Rakchham and Night Stayed at Rakchham DAY 4: Started journey in the morning to visit Chitkul and also visited the last check-post on this route, arrived Kalpa via Reckong Peo and Night Stayed at Kalpa DAY 5: Moved towards Tabo via Nako through the World’s Most Treacherous Road, visited Nako Lake and made a journey through Kasang Nala, Malang Nala and the natural sculptures, enroute visited the Gue Village also, Night Halt at Tabo. DAY 6: Walked around the Tabo Monastery and moved towards Pin Valley, Visited Dhankar Gompa on the way, Night Halt at Mudh Village, Pin Valley DAY 7: Enjoyed the nature at Mudh Village and started the journey towards Kaza. After reaching KAZA in the morning, we visited Ki Monastery and Kibber village, Night stayed at Kaza DAY 8: Covered the villages Langza, Komic and Hikkim villages and stayed back at Kaza DAY 9: Started journey towards Chandratal via Losar village and Kunzum La (Pass), visited...
বাবার সঙ্গে পাহাড় চড়ার গল্প : তুঙ্গনাথ ও দেওরিয়া তাল

বাবার সঙ্গে পাহাড় চড়ার গল্প : তুঙ্গনাথ ও দেওরিয়া তাল

যাত্রা সময়কাল : ০১-১০-২০১৮ – ০৭-১০-২০১৮   যাত্রা শুরুর আগের পর্ব : গল্পটা আমার থেকেও বেশি আমার বাবার। মানুষটার ভ্রমণের প্রচুর গল্প শুনে বড় হয়েছি। না সেরকম অর্গানাইসড্ বেড়ানো নয়। কখনও কাজের সূত্রে, কখনও চাকরির পরীক্ষা দেওয়ার সূত্রে, কখনও কোন কারণ ছাড়াই এমনিতেই হঠাৎ বেরিয়ে পড়া। স্বাভাবিক ভাবেই তাই মনে করা হয় আমার এই ভ্রমণ পাগলামোর পিছনে বাবার দায় সর্বাধিক। না বাবা আমাদের নিয়ে ছোটবেলায় কোনদিন সেই অর্থে বেড়াতে নিয়ে যাননি, আত্মীয় স্বজনের বাড়ি ছাড়া। বলা ভালো নিয়ে যেতে পারেননি। আর্থিক অবস্থাই এর মূল কারন। নুন আনতে পান্তা ফুরানোর অবস্থা না হলেও কোনরকম বিলাসিতার ধার দিয়ে যাইনি ছোটবেলায়। তাই অভিযোগ করার জায়গাও ছিলনা তেমন। ছোটবেলায় বাবার সঙ্গে সম্পর্কটা ছিল আতঙ্কের। সেই দূরত্বটা তাই আজও বজায় আছে। কোনদিনই কাছের হয়ে উঠতে পারিনি বাবার। আগে ছিল আতঙ্ক এখন তা সসম্ভ্রম দূরত্ব। বাবার সাথে বেড়াতে যাওয়াটা তাই আমার জীবনের বেশ গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। কিন্তু একসঙ্গে বেড়ানোর আবশ্যিক শর্ত তখনই লঙ্ঘিত হল যখন জানা গেল কেউই অন্যজনের শর্তে ঘুরতে রাজি নয়। আমার মতে বাবার প্ল্যান একটু গোলমেলে এবং অহেতুক জটিল। আবার বাবার মতে আমারটা বড্ড সাদামাটা আর কমন। যাই হোক অবশেষে সাদামাটা কমন প্ল্যান ১-০ গোলে জিতল এবং আমাদের যাত্রা শুরু হল দুন এক্সপ্রেসে বর্ধমান জংশন থেকে। আমি মোটামুটি বছরে তিন-চারটে বেড়ানোর চেষ্টা করি ছোট বড় মিশিয়ে। বাবা সেভাবে বেড়ানো শুরু করেছে রিটায়ার করার পর। মোটামুটি একটা-দুটো ঘোরে বছরে মায়ের সাথে। মায়ের গতবছর হাঁটু ভাঙার পর এখন তা আরও কমেছে সংখ‍্যায়। ফলে বাবার সঙ্গী নেই বিশেষ। বহুদিনের পরম অভীষ্ট তুঙ্গনাথ ও চন্দ্রশীলা তাই হওয়ার উপায়ও ছিলনা বাবার। একদিন তাই একটু সঙ্কোচ করে আমাকে কথাটা পেড়েই ফেলল বাবা। আমি জানতাম বাবার সাথে কোথাও বেড়াতে গেলে পদে পদে মতবিরোধ হবেই। কিন্তু না বলার ইচ্ছাও আমার ছিলনা...
কাজীরাঙ্গা ভ্রমনের খুঁটিনাটি

কাজীরাঙ্গা ভ্রমনের খুঁটিনাটি

তিন দিনে কাজিরাঙ্গা আসুন দেখে নেওয়া যাক তিন দিনের কাজিরাঙ্গা ভ্রমণের একটা সফরসূচি। ভ্রমনসঙ্গী ছিল ৬ জন। কাজীরাঙ্গা ন্যাশনাল পার্কের চারটি রেঞ্জ a) Kahora b) Western c) Eastern d) Burapahar সবথেকে ভালো যদি Kahora আর Western রেঞ্জ ঘোরা যায় । সামনে থেকে ওয়াইল্ড লাইফ উপভোগ করা যাবে । কিভাবে যাবেন : প্রথমে হাওড়া থেকে ট্রেনে গুয়াহাটি চলে আসুন। গুয়াহাটি স্টেশনে নেমে পল্টনবাজারে চলে আসুন আর কাউন্টার থেকে কাজিরাঙ্গার টিকিট কাটুন। গুয়াহাটি থেকে সরাসরি কোনো বাস নেই, খানাপাড়া থেকে বাস ধরতে হয়। গুয়াহাটি থেকে খানাপাড়া মাত্র ৯ কিমি। পল্টনবাজারে টিকিট কেটে অপেক্ষা করুন। ওরাই আপনাকে বাসে খানাপাড়া পৌঁছে দেবে। হাওড়া থেকে গুয়াহাটি ট্রেনে স্লিপার ক্লাসের ভাড়া ৫০০ টাকা। গুয়াহাটি থেকে কাজিরাঙ্গার এসি ভলভো বাসে ভাড়া ৩৭০ টাকা। কোথায় থাকবেন : কাজীরাঙ্গা তে অনেক প্রাইভেট হোটেল আছে কিন্তু ভালো হবে যদি সরকারি হোটেল নেন। অনেকটা বনবাংলো এর মতো। পরিস্কার ও বড় রুম। সবকটা রুম ইংরেজ আমলের। সবথেকে যেটা ভালো লাগবে সেটা হলো বনানীর ম্যানেজার কমলেস্বর বাবুর অমায়িক ব্যবহার। VIP দের জন্য আছে অরন্য গেস্ট হাউস। আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি বনানীর থেকে বনশ্রীতে থাকুন। বনশ্রীতে একটা অ্যাডভেঞ্চার গন্ধ আছে যেটা বনানীর নুতুন দেওয়ালে নেই। আর বনশ্রীর উল্টো দিকে আছে জঙ্গলে ঢাকা ঝরনা। গুয়াহাটি থেকে বাসে উঠে ড্রাইভার কে বলে দেবেন বনানীতে নামবো। হাইরোড থেকে নেমে 500 মিটার চা বাগানের মধ্য দিয়ে হেঁটে হোটেল বনানী। বনানী হোটেলের ভাড়া ৮০০ টাকা পার ডে আর বনশ্রী হোটেলের ভাড়া ৬০০ টাকা পার ডে। বনানী বা বনশ্রী হোটেল বুক করতে চাইলে কমলেশ্বর বাবুর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। নম্বরটি হলো: 8638802825 এছাড়া আসাম ট্যুরিজমের এই ওয়েবসাইটটিও দেখতে পারেন : http://www.assamtourismonline.com/properties.html ভ্রমনসূচি : প্রথম দিন : কাজিরাঙ্গা পৌঁছে ফ্রেশ হয়ে বেড়িয়ে পড়ুন লোকাল সাইটসিন দেখতে। হোটেল থেকে বেরিয়ে...