Lossing and Rangpokhola – A offbeat gateway of east sikkim

Lossing and Rangpokhola – A offbeat gateway of east sikkim

Reading Time: 4 minutesপূর্ব সিকিমের অচিন গাঁ লোসিং (Lossing) এবং রংপোখোলা(Rangpo Khola) নদী- অতনু চক্রবর্ত্তীর কলমে সিল্ক রুট ভ্রমনের এই পর্বে আমাদের আজকের গন্তব্যস্থল রোলেপখোলা হয়ে লোসিং গ্রাম। নিউ জলপাইগুড়ি থেকে একটা গাড়ি নিয়ে দুপুর একটা নাগাদ পৌঁছে গেলাম রংলি। গাড়িটা রংলি থেকে বামদিকে কিছুটা যেতেই আশেপাশের সবুজ দৃশ্যাবলী চোখে পড়লো। ডানদিকে পাহাড় আর বাঁদিকে সবুজ উপত্যকা রংপোখোলা, মাঝখানে ঝকঝকে রাস্তা দিয়ে গাড়ি ছুটে চলল। দুপাশে অনিন্দ্য সুন্দর দৃশ্যাবলী,খানিক দূর অন্তর ছবির মতো ততোধিক সুন্দর পাহাড়ি গ্রাম। নীচে রুপোলী রেখার মতো চোখে পড়ল একটি পাহাড়ি নদী, সেই জন্যই দুটি পাহাড়ের মাঝখানে সৃষ্টি হয়েছে গভীর নদীখাদ। বেশ কয়েকটা বাঁক ঘুরে আরও কিছুটা যাবার পরে চোখে পড়ল একটি ঝুলন্ত পুরানো সেতু আর তার নিচ দিয়ে বয়ে চলেছে উদ্দাম রোলেপখোলা নদী। পুরানো সেতুর ঠিক পাশেই একটা পাকা সেতুও দেখতে পেলাম। নদীটি যেন পাহাড়ের বুক চিরে নেমে এসেছে। সে এক অনির্বচনীয় দৃশ্য। প্রকৃতি তার অপার সৌন্দর্য্যের ডালি সাজিয়ে রেখেছে আমাদের উপভোগ করার জন্য। খরস্রোতা নদীটি বোল্ডারে ধাক্কা খেয়ে রীতিমত গর্জন করতে করতে নিচে নেমে আসছে।   ফটো তোলা শেষ করে গাড়ি ফিরতি পথে এগিয়ে গেল বুদ্ধ জলপ্রপাতের (Buddha Falls) দিকে।গাড়ি থেকে নেমে পাহাড়ি রাস্তায় কিছুটা হেঁটে নামতে হয়, ঝরনার কাছে পৌঁছাতে হলে। খুব সাবধানে আস্তে আস্তে হেঁটে আমরা ঝরনার কাছে গেলাম। ওপর থেকে সশব্দে নেমে আসছে সাদা জলের ধারা। পাহাড়ি পথে ধাক্কা খেতে খেতে বয়ে চলেছে ঝরনার জলরাশি। এদিকে দুটো বাজে, পেট খিদেয় চুঁইচুঁই করছে তাই আর দেরি না করে এগিয়ে গেলাম লোসিংয়ের উদ্দেশ্যে। আসা যাবার পথে অনেক পাখী উড়ে যেতে দেখলাম। অবশেষে ক্লান্ত শরীরে প্রায় পৌনে তিনটের সময় পৌঁছয়ে গেলাম রংপোখোলার (River Valley Home Stay) হোমস্টেটে।     হাতে গোনা দুটি হোমস্টে নিয়ে গড়ে উঠেছে গ্রামীণ পর্যটনের এই নতুন ঠিকানা রংপোখোলা। হোমস্টের...