Weekend Tour From Kolkata in winter

Weekend Tour From Kolkata in winter

Weekend Tour From Kolkata in winter Here is a list of complete travel guides on Weekend Tour from Kolkata in winter which will help you to prepare your weekend plan. Lets Begin here: Plan for Day out from Kolkata: 1. Sukharia-Name of an unknown historical village. The village of Sukharia is associated with the Mitra Mustafi family whose other settlements were in the villages of Ula Birnagar and Sripur. Read More Here    2. A day in Sundarban-World largest mangrove forest(My travel experience) The Sundarbans is a mangrove area in the delta formed by the confluence of Ganges, Brahmaputra and Meghna Rivers in the Bay of Bengal. Read More Here Plan for 1 night or 2 Nights trip: 1.Gangani-Grand Canyon of Bengal Gangani is popular for its versatile land structures. Gangani is located on the bank of river Silabati at Garbeta,West Bengal. Here red soil make high ridge by the erosion of air and water. Read more here 2. Geonkhali : Weekend Trip from Kolkata ছোট্ট ছুটিতে কাছে পিঠে কোথাও বেড়াতে যেতে চান? ঘুরে আসুন তিন নদীর সংযোগ স্থল গেঁওখালি থেকে। গেঁওখালিতে কোথায় কিভাবে ঘুরবেন, কি কি দেখবেন, কোথায় থাকবেন সব তথ্য আপনাদের জন্য। Read More Here 3. Mukutmanipur Travel Guide মুকুটমণিপুর বেড়াতে যাবেন? জেনেনিন কোথায় কোথায় ঘুরবেন, কি কি দেখবেন, কোথায় থাকবেন, কিভাবে ঘুরবেন সব তথ্য Read more Here 4.গঙ্গাসাগর গঙ্গাসাগর যাওয়ার সম্পূর্ণ ও বিস্তারিত ট্রাভেলগাইড। কিভাবে যাবেন,কোথায় থাকবেন,কিভাবে ঘুরবেন সব তথ্য একজায়গায়। Read more here 5.Chandpur The newest beach destination near Kolkata Read More Here 6.শান্তিনিকেতন ট্যুর শান্তিনিকেতন বেড়াতে যাওয়ার ট্রিপ রিপোর্ট ও ট্রাভেল গাইড Read more here   7.উইকএন্ডে ঝিলিমিলি – সাথে জঙ্গল মহলের সুতান, কাঁকড়াঝোড় উইকএন্ডে ঘুরে আসতে পারেন ঝিলিমিলি...
Geonkhali : Weekend Trip from Kolkata

Geonkhali : Weekend Trip from Kolkata

Geonkhali : Weekend Trip from Kolkata শীতের আউটিং : গেঁওখালিতে ডিসেম্বর মাসটা পড়লেই সবার মনটা কেমন উড়ু উড়ু করে। বেশিরভাগ মানুষই অনেকদিন আগে থেকেই উইকএন্ড ট্যুরের প্রস্তুতি শুরু করে দেন। আর যারা হোটেল বা ট্রেনের রিজার্ভেশন পান না, অগত্যা তারা একটা গোটা দিনের ট্যুর বা পিকনিকের পরিকল্পনা করেন। আমার এই পোস্ট সেইসব ভ্রমনপিপাসুদের উদ্দেশ্যে নিবেদিত। একদিকে রূপনারায়ণের মন ভোলানো রূপ আর অন্যদিকে গঙ্গা (হগলী নদী)। দুই নদ-নদী মিলেমিশে একাকার হয়ে গিয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের গেঁওখালিতে ৷ একদিকে দঃ ২৪ পরগনার নূরপুর ও অন্যদিকে হাওড়ার গাদিয়াড়া। সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তে সঙ্গমের এই অতুলনীয় রূপ আরও মোহময়ী হয়ে ওঠে। নদীর পারে সারিবদ্ধ্ বাবলা, আম, শিরিষ, ঝাউ, ইউক্যালিপটাস ও আকাশমণিদের দল…..শীতের হাওয়া…. শুষ্ক ত্বক…. সকালের কুয়াশায় মাথা ভিজে যাওয়া ….কথা কইলে মুখে ধোঁয়া…. আবছা মাঝি আর তাদের ডিঙি নৌকা…..গাছ থেকে পাড়া টাটকা খেজুর রস…..জ্বাল দেওয়া নলেন গুড়ের সুবাস…. বেলা বাড়লে নদীর জলে রোদ ঝিলমিল খেলা..…ছোটবড় জাহাজের ভেসে যাওয়া …..ঢেউয়ের ধাক্কায় ঘাটে বাঁধা নৌকার বাঁধনহারা হওয়ার বৃথা উচ্ছাস….. এই সব মিলিয়ে গেঁওখালি। নদীর ধারে বেঞ্চে বসে থাকুন। আর চেয়ে থাকুন। অনুভব করুন। যদি পাশে থাকে প্রিয় মানুষ আর সঙ্গে ফ্লাক্সে আনা ধোঁয়া ওঠা চা আর গরমাগরম চপ বা পিঁয়াজি, তাহলে তো আর কথাই নেই, ভালো লাগা জমে যাবে অন্তরে অন্তরে। ++ সাইট সিইং : • কাছেই একটি নদীর জল পরিশোধনাগার ও কয়েকটি ছোট ছোট লেক আছে। পরিশোধনাগার দেখতে অনুমতি লাগে। লেকের পাড়ে পিকনিক পার্টিদের ভীড় বেশি থাকে। কিছুদূরে মীরপুর চার্চ, বড়দিনের সময় সারা খ্রীষ্টান পল্লী উৎসবে মেতে ওঠে। • দুপুরের খাওয়া সেরে দেখতে চলুন ১০ কিমি দূরে বিখ্যাত মহিষাদল রাজবাড়ি(রঙ্গীবসান ও ফুলবাগ) ও সংগ্রহশালা, গোপালজীউ ও শিব মন্দির, লালকুঠি, রামবাগে রাম মন্দির ও দেওয়ান সাহেবের বাড়ি এবং কিছুদূরে মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতি বিজড়িত গান্ধী কুটির। • সময়...
Mukutmanipur Travel Guide

Mukutmanipur Travel Guide

Mukutmanipur Travel Guide : Weekend destination near Kolkata দেখে আসুন মুকুটমনিপুর ভারতের এক প্রাচীন শহরের রাজা, তাঁর অত্যন্ত প্রিয় রানী মুকুটমনির নামেই জায়গার নাম রাখলেন। সেই শহরের নাম অম্বিকানগর। আর জায়গাটির নাম হল মুকুটমনিপুর। হ্যাঁ, আমি বাঁকুড়ার মুকুটমনিপুরের কথাই বলছি। কংসাবতী আর কুমারী নদীর সঙ্গমস্থলে অবস্থিত, যেখানে আছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মনুষ্য নির্মিত মাটির বাঁধ। কংসাবতী সেচ ও জলবিদ্যুৎ প্রকল্প। যাওয়ার উপায় কি কি ঃ ট্রেনে করে গেলে নিকটবর্তী রেল স্টেশন হল বাঁকুড়া। হাওড়া ও সাঁতরাগাছি থেকে ট্রেন পাবেন। অথবা একটু দূর হলেও দূর্গাপুর স্টেশনে নেমেও যেতে পারবেন। বাঁকুড়া স্টেশন বা বাসস্ট্যান্ড থেকে বাস ও গাড়ি পাবেন। দূর্গাপুর থেকেও গাড়ি পেয়ে যাবেন, অথবা বাঁকুড়া চলে আসুন। বাসে যেতে চাইলে ধর্মতলা থেকে মুকুটমনিপুরের, অথবা গোড়াবাড়ির বাস পাবেন। আর তা না হলে বাঁকুড়ার বাস তো আছেই। আর যদি গাড়ি বা বাইকে যেতে চান, তাহলে দূর্গাপুর এক্সপ্রেস হাইওয়ে ধরাই ভালো। কোলকাতা থেকে কোনা এক্সপ্রেস রোড হয়ে দূর্গাপুর এক্সপ্রেস হাইওয়ে। সোজা দূর্গাপুরের মুচিপাড়া। ওখান থেকে বাঁ দিকে ঘুরে বাঁকুড়ার রাস্তা। বাঁকুড়ার ধলডাঙ্গা দিয়ে সোজা খাতড়া হয়ে মুকুটমনিপুর। রাস্তা নিয়ে চিন্তা নেই। দারুণ রাস্তা। একটা কথা বলে রাখি। মুকুটমনিপুর গেলে সঙ্গে গাড়ি রাখার চেষ্টা করবেন। কারন ওখানে মোটর চালিত ভ্যান, আর কিছু অটো পাবেন। তাও সকালের দিকে, আর বিকেলে। তাই এদিক ওদিক যেতে চাইলে গাড়ি থাকলে সুবিধাজনক। কোথায় থাকবেনঃ মুকুটমনিপুরের সবথেকে ভালো জায়গায় আছে ইয়ুথ হোস্টেল। একেবারে ড্যাম যেখান থেকে শুরু হচ্ছে, সেখানেই। WBFDC এর প্রকৃতি ভ্রমন কেন্দ্র অনবদ্য। সোনাঝুরি এর নাম। পাহাড়ের ওপরে বিশাল জায়গা নিয়ে গড়ে উঠেছে। এছাড়া আছে পিয়ারলেস ইন, আম্রপালি, অপরাজিতা সহ অনেক হোটেল আর রিসর্ট। আছে রেস্তোরাঁও। ইয়ুথ হোস্টেল বুকিং এর জন্য দেখুন www.youthhostelbooking.wb.gov.in WBFDC এর জন্য দেখুন www.wbfdc.com কি কি দেখবেনঃ ১. মুকুটমনিপুরের প্রধান আকর্ষণ হল ৭ কিমি...
Bersey Rohdodendron Sanctuary Trek : West Sikkim Tourist Destinations

Bersey Rohdodendron Sanctuary Trek : West Sikkim Tourist Destinations

Bersey Rohdodendron Sanctuary Trek : West Sikkim Tourist Destinations রোডোডেন্ড্রনের মাঝেঃ ভার্সে ট্রেকিং চট করে একবার হিলে ভার্সে ঘুরে আসুন। দারুণ সুন্দর একটা ট্রেকিং আপনার জন্য অপেক্ষা করছে। না, না, ঘাবড়াবেন না একদম। এই ট্রেক করতে গিয়ে আপনাকে অনেক কিছু নিয়েও যেতে হবে না, ওষুধও খেতে হবে না। তবু যখন ফিরে আসবেন, দেখবেন এর স্মৃতি লেগে থাকবে চোখে মুখে। চোখ বুজলেই দেখতে পাবেন ঐ বনবীথির প্রতিটি বাঁক, অনুভব করতে পারবেন পায়ের তলায় বিছিয়ে থাকা পাতার মখমল, দেখতে পাবেন হরেক রকম রঙের গুরাসের ক্যানভাস। ঠিক ধরেছেন, গুরাস হল আমাদের পরিচিত সেই পাহাড়ি ফুল, রোডোডেন্ড্রন। আর যে রাস্তাটির কথা বললাম, সেটি হল ভার্সে রোডোডেন্ড্রন স্যানকচুয়ারির পথ। হিলে থেকে আপনাকে যেতে হবে ভার্সে। ওখানে যে চেক পোস্ট আছে, সেখান থেকে আপনাকে হাঁটতে হবে প্রায় ৪ কিমি। এটাই ট্রেকিং। সময় লাগবে ধরুন ঘন্টা দুয়েক। তবে আপনার ফোটোগ্রাফির সখ থাকলে সময় অনেক বেশি লাগবে। কারণ প্রতিটি বাঁকেই আপনি ছবি না তুলে আসতে পারবেন না। কি ভাবে যাবেনঃ নিউ জলপাইগুড়ি বা শিলিগুড়ি থেকে গাড়ি নিয়ে অথবা বাসে যেতে হবে জোরথাং। শেয়ার গাড়ি হলে জোরথাং এ গিয়ে অন্য গাড়ি নিতে হবে। জোরথাং থেকে আপনাকে যেতে হবে ওখরে তে। ওখরে থেকে হিলে আর ভার্সে যেতে হয়। এবারে বলি কি, কবে, কোথায়ঃ ১. ভার্সে যেতে হলে আপনাকে হিলে হয়ে যেতে হবে। আবার হিলে তে আপনাকে যেতে হবে ওখরে হয়ে। তাই ওখরে তে একরাত থাকতেই হবে। ওখরে খুব সুন্দর জায়গা। ছোট্ট একটা জনপদ, পাহাড়ের ঢালে ঢালে কয়েকটা ঘরবাড়ি। আছে একটা ছোটো স্কুল। ওখরে থেকে যে দৃশ্য আপনি দেখতে পাবেন, তা অসাধারণ। ওখান থেকে আপনি অন্যান্য কয়েকটা জায়গাও দেখে আসতে পারবেন। ওখরের উচ্চতা প্রায় ৯০০০ ফিট, ভার্সের উচ্চতা ১০০০ ফিট বেশি। ২. ওখরে থেকে হিলের দূরত্ব ৯ কিমি। ওখানে এম...
Meghalaya Travel Guide

Meghalaya Travel Guide

Meghalaya Travel Guide #মেঘালয় #শিলং মেঘালয়ের আনাচেকানাচে ঃ সেভেন সিস্টার্সের এক বোন হলো এই মেঘালয়। এই মেঘালয় ঘুরে এসে খুব সংক্ষিপ্ত একটা ভ্রমণপঞ্জি দিলাম। সাথে কিছু ছবি।কি ভাবে যাবেন, কি কি দেখবেন, কি খাবেন এই সব আর কি। তবে সবই আমার মত করে বলবো। মডিফাই করা আপনার কাজ।     কি ভাবে যাবেনঃ ট্রেনে গেলে গুয়াহাটি স্টেশনে নামবেন। স্টেশনের বাইরে, বা পল্টন বাজার থেকে শিলং এর গাড়ী পাবেন। বাসও আছে। রাস্তা খুব ভালো, সময় লাগবে গাড়ীতে ঘন্টা তিনেক। ফ্লাইটে গেলে গুয়াহাটি বিমানবন্দর শিলং থেকে ১২৩ কিমি। আর আছে উমরই বিমানবন্দর ৩৫ কিমি দূরে। উমরইএ মঙ্গলবার ছাড়া সবদিন এলায়েন্স এয়ারের বিমান ছাড়ে। গুয়াহাটি থেকে শিলং গাড়ীর ভাড়া পড়বে সীট প্রতি ২০০ টাকা। পুরো গাড়ী ভাড়া করলে নেবে ১০ টি সীটের দাম, মানে ২০০০ টাকা। দরদাম করে ১৭০০-১৮০০ টাকা করা সম্ভব। বাসের ভাড়া জন প্রতি ১৩৫-১৫০ টাকা। বাসের আগাম টিকিটের জন্য এই ওয়েবসাইটে ঢুকুনঃ https://astcbus.in/ আমরা গেছিলাম সেল্ফ ড্রাইভ গাড়ী নিয়ে। এরকম গাড়ী পাবেন গুয়াহাটি থেকে। জুমকার (zoomcar.com) তার মধ্যে অন্যতম। সেক্ষেত্রে আপনার গাড়ী চালানোর ইচ্ছা এবং দক্ষতা থাকা দরকার। ট্রেনের সময়, টিকিট, পিএনআর, রানিং স্ট্যাটাস ইত্যাদির জন্য Ixigo app টা রাখুন। খুব কাজে দেবে। IRCTC তো আছেই। গুয়াহাটিতে হোটেলের জন্য বলার কিছু নেই। প্রচুর হোটেল। আমার ব্যাক্তিগত পছন্দের কথা বললে রি-সান হোম স্টে তে থাকতে পারেন। দিসপুরে MLA Hostel এর ঠিক উল্টো দিকে। আমার ভালো লেগেছে। কি কি দেখবেনঃ শিলং এ বা মেঘালয়ে কি কি দেখবেন সেটার একটা তালিকা দেওয়া ভালো। কাজে লাগবে। গুগল এ আপনি পেয়ে যাবেন দেখার জায়গাগুলো। তাও একবার বলে দিচ্ছি। অনেক সময় ভাড়ার গাড়ীর ড্রাইভার বলে দেয় যে, ওখানে কিছু নেই, গিয়ে কি করবেন ইত্যাদি। ১. এলিফ্যান্ট ফলস খারাপ লাগবে না। দেখবেন অবশ্যই। তবে চেরাপুঞ্জির বাঘা...